Any time you’re in a commitment, there are many things that include certain to happen

Any time you’re in a commitment, there are many things that include certain to happen

Any time you’re in a commitment, there are many things that include certain to happen

Demonstrably, you’re read lots about your self along with your partner, you’re in addition gonna combat. A large number. Yes, when you first go into a relationship, you may not believe you are ever going to battle, however you are. Course. But, by understanding how connections transform after your first battle, you will be cooked for what’s to come.

Really, combat in an union is entirely regular, and it’s practically nothing as scared of, providing you posses a secure foundation. You also have to actually be honest with each other, and both getting focused on employed through they, versus letting go of once the heading will get tough.

Including, whenever a partnership is new, it may be simple to overlook the little things that you would normally want to explore, if not disagree over. And that is totally regular. As accredited matrimony and families specialist Vienna Pharaon told elite group constant, “This is the time whenever they’re figuring both , and it’s enough time once they’re the least positive about asking their particular lovers for clarity, articulating limitations, and experiencing secure that making requests wont frighten the other one-off.”

But when that honeymoon level wears off, what can you anticipate after very first battle?

Actually, my earliest fight using my boyfriend ended up being very funny. Lookin back once again, I do not really remember what it involved, apart from the point that they concluded around both laughing www.datingranking.net/e-chat-review, holding each other, and promising to do better. Don’t assume all first battle has to be an awful thing, but even though you’re however within honeymoon level, you are probably maybe not gonna remain here permanently.

After you’ve type of established in the connection, you cannot postponed a combat anymore. That is certainly OK. In reality, that is a decent outcome. Meredith Shirey, lovers therapist and founder of her very own private sessions practise, advised top-notch frequent that are comfy enough to have an argument or a fight try a confident signal. “If there is a time of contention, if something are bothering you, just how most likely will you be so that your spouse realize which is a problem available?” she stated. “If you say not to probably, how come that? Do an internal check: can it be due to the fact scared of my personal partner’s reaction or worried they will end up being protective or invalidate me personally in some manner?”

Basically, having your basic combat is truly a great signal, so long as you can perhaps work past they.

Once you’ve the first battle, your union will change. Fighting along with your spouse can tell you the way the both of you can handle hard issues. It doesn’t matter what your own battle means (revenue, washing, health — OMG, i simply recalled the very first fight was about me not attempting to manage CrossFit with my boyfriend. Ah, memories.), it doesn’t matter. What matters is the method that you handle it.

Beverly mountains families and partnership psychotherapist, Dr. Fran Walfish, informed Elite routine that a couple that does not combat might have considerably at stake than a couple of that does. “a few [that has not got a disagreement] may go ahead toward engagement and relationships and then have no chance to evaluate the way they browse variations,” she mentioned. If there is an unexpected existence event — like a medical discourage, or someone you care about passing away, or any sort of accident — “the happy couple may need to manage the crisis as well as their opposing perspectives, raising the stakes and intensity [of the fight].”

After that first combat, you are going to find out and expand lots. The one thing about interactions would be that they’re in fact among the best ways to discover yourself and grow. Once you along with your mate get very first combat, you are probably likely to have an extended chat after. Even better is, you’ll be able to grow such collectively. You’ll know one another’s borders, you’ll know that your relationship are sufficiently strong to undertake everything, and the majority of significantly, you’ll think thus as well as safe.

Battling together with your mate isn’t really simple, as well as beingn’t fun. But once you’ve crossed that crucial link, your partnership is only going to improve.

এই পোস্টটি সোশাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আমাদের ডোনেট করুন

শিশুদের উন্নয়নে অংশিদার হোন
আমাদের সহায়তা করুন

বিকাশ নাম্বার- ০১৭৩৬২১৩৮২৮

মাসব্যাপি অনলাইন কুইজ প্রতিযোগীতা-২০২০ইং

মাসব্যাপি অনলাইন কুইজ প্রতিযোগীতা-২০২০ইং পেতে এখানে ক্লিক করুন ।

অনলাইনে ভোটার রেজিষ্টেশন

অনলাইনে ভোটার রেজিষ্টেশন ফরম পেতে এখানে ক্লিক করুন ।

অনলাইনে সদস্য ফরম

অনলাইনে সদস্য ফরম পেতে এখানে ক্লিক করুন ।

সকল ফরম সমূহ

শিশু সংসদ সদস্য পদে আবেদন ফরম পেতে এখানে ক্লিক করুন ।

নির্বাচনের মনোনয়ন ফরম পেতে এখানে ক্লিক করুন

উপ শিশু সাংসদ সদস্য পদে আবেদন পত্র পেতে এখানে ক্লিক করুন

উপদেষ্টা পদে সম্মতি পত্র পেতে এখানে ক্লিক করুন

ভোটার রেজিঃ ফরম পেতে এখানে ক্লিক করুন

চেয়ারম্যানের পরিচয়

মিস. ফাতিমা মুন্নি। প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান বাংলাদেশ জাতীয় শিশু সংসদ বিএনসিপি। তিনি দেশের অন্যতম একজন শিশু সংগঠক, শিশু গবেষক এবং সম্পাদক। তিনি জনপ্রিয় জাতীয় শিশু কিশোর ম্যাগাজিন কিশোর গোয়েন্দা’র সম্পাদক ও প্রকাশক। এছাড়াও তিনি বিএনসিপির সকল সহযোগী প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রতিষ্ঠাতা।১৯৯৬ সালে ৩০ শে মে ঐতিহাসিক কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলার এক মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বর্তমানে স্বপরিবারে ঢাকার কমলাপুরে বসবাস করেন। তিনি ঐহিয্যবাহী কুমিল্লা ভিক্টরিয়া সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিষয়ে অর্নাসে প্রথম শ্রেণীতে উৎতিন্ন হয়ে একই কলেজ থেকে মাষ্টার’স শেষ করে বর্তমানে উচ্চতর ডিগ্রী পিএইসডি অর্জনের জন্য দেশের বাহিরে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।
তিনি ছোট বেলা থেকেই শিশুদের ব্যাপারে খুবই কৌতুহলি এবং আবেগি ছিলেন। তিনি সব সময় শিশুদের উন্নয়ন এবং ভবিষৎতে যেন আজকের শিশুরাই আগামীর পৃথিবীকে সুন্দর ও যুগ উপযুগী সিদ্ধান্ত নিয়ে সঠিক ভাবে পরিচালনা করতে পারে এই নিয়ে চিন্তা করতেন। “আজকের শিশুরাই আগামীর ভবিষৎত” মূলত এই ব্যাক্যটি থেকেই বিএনসিপির জন্ম। মিস. ফাতিমা মুন্নির মতে যদি আজকের শিশুরাই আগামীর ভবিষৎত হয়ে থাকে তবে অবশ্যই তাদের আগামীর জন্য উপযুক্ত করে গড়ে তুলতে হবে এবং অবশ্যই সেই গড়ে উঠার মাধ্যমটি হতে হবে সম্পূর্ন ভিন্ন, কৌতুহলি, যুগ উপযুগী এবং সর্বপরি সর্বজনিন গ্রহণযোগ্য। কি হতে পারে সেই মাধ্যম, এমন চিন্তা, গবেষণা এবং অক্লান্ত প্ররিশ্রমের ফল ই হল আজকের বিএনসিপি। বিএনসিপি শুধুমাত্র একটি সংগঠন নয়, এটি রাষ্ট্র ও সমাজের শুভ, কল্যাণ ও শ্রেয়বোধ উন্নয়ন মূলক প্রতিষ্ঠান। নতুন প্রজন্ম নতুন পৃথিবী চায় তারা এ দেশের ভবিষ্যত নির্মাতা। তাদের রুচি, মেধা ও মূল্যবোধের ওপরই নির্ভর করছে দেশের ভবিষ্যত কতটা উজ্জলতর হবে। নিজেকে উন্নত মানুষ হিসাবে গড়ে তুলতে পারাটাই প্রত্যেকে এক বড় কর্তব্য। তাহলেই তারা তাদের মেধা, শ্রম, শিক্ষা ও রুচি দিয়ে দেশ, মানুষ ও বিশ্বমানবতার কল্যাণে নিজেদের নিয়োজিত করতে পারবে এবং গণতন্ত্র চর্চ্যা, সাহিত্য, শিল্প, সংস্কৃতি, খেলাধুলার মধ্য দিয়েই শিশুরা হয়ে উঠবে আর্দশ নাগরিক হিসাবে। বিএনসিপি নতুন প্রজন্মের মধ্যে এই মানবিক মূল্যবোধ সঞ্চার করতে চায়। এটি মানবিক মূল্যবোধে উজ্জ্বিবিত মানুষের সম্মিলিত হওয়ার, নিজেকে গড়ে তোলার এবং মানবতার কল্যাণে কাজ করার একটি মঞ্চ। “আমরা জয় করব নিজেকে, জয় করব এই দেশকে এই দেশের মানুষকে এই আমাদের অঙ্গিকার” এই শ্লোগান নিয়ে প্রতিষ্ঠিত বিএনসিপি। সারা দেশেই রয়েছে এর বিস্তৃতি। এটি একটি শিশু অধিকার রক্ষা এবং শিশু-কিশোদের নেতৃত্ব বিকাশ ও মানসিক উন্নয়নের লক্ষে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠার অন্যতম শ্রেষ্ট মাধ্যম।

“শিশুদের উন্নয়নে অংশিদার হোন
আমাদের সহায়তা করুন
বাংলাদেশ জাতীয় শিশু সংসদ বিএনসিপি
আসুন সবাই শিশুদের উন্নয়ন করি কপি”

ধন্যবাদান্তে
ফাতিমা মুন্নি
প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান
বাংলাদেশ জাতীয় শিশু সংসদ বিএনসিপি