The answer is easy. Bite the uncomfortable bullet and PUT THE CELL AWAY.

The answer is easy. Bite the uncomfortable bullet and PUT THE CELL AWAY.

The answer is easy. Bite the uncomfortable bullet and PUT THE CELL AWAY.

One Half Robot Monster. The guy seems real human. He smells human beings. The guy speaks human. But, oh dear God, he requires all his instructions from their robot give. Okay, you will call it an iphone 3gs, but any such thing glued your palm which you seek advice from continuously during a conversation and glance straight down at as if this may need life altering reports every single other instant is weird. Yes, experience socially shameful isaˆ¦ embarrassing. And having a gadget to stare at is a great method to deflect those attitude. Youaˆ™re just making items even worse. To begin with, some guy along with his nose inside the mobile is not friendly. Second, if you as well as your robot give result in the approach, you come-off as sidetracked, active, or impolite. Iaˆ™ve become on several dates recently where, through the dialogue, the guy kept checking their texts and email. At one point he organized his telephone to demonstrate me a funny book. They didnaˆ™t material if you ask me exactly how amusing it absolutely was aˆ“ why performed the guy need to be checking they to start with? Another chap, half way through asking me on, paused to google the place the guy wished to take me to be certain that he’d title right. Information flash: Iaˆ™m a lot more excited youraˆ™re asking myself on than towards location weaˆ™re heading. Plus today Iaˆ™m experience aggressive with your small robot. Donaˆ™t do this to a lady!

It had been a (long) while since heaˆ™d dated. His error had been seeing the very first easy-to-talk-to girl.

The Zombie-eyed Monster. The truth is her across the place. Youaˆ™re ready to make your step. Everyone support you simply because they know what outstanding, amusing, cool guy you may be. But anything takes place in that very long walk-over to the girl. Visions of getting rejected swirl in your head, a wacky anime form of your self swims before you decide to attention, and before long the identity drains of you love lifetime from a corpse and you alsoaˆ™re remaining with pure cotton lips and goggly sight. This usual beast is actually harmful and then itself. Itaˆ™s solution to scared as to the might happen to actually harmed anybody else. Itaˆ™s also frightened of exactly what might take place aˆ” cycle. This beast thinks it’ll harm considerably are rejected if he could benaˆ™t REALLY declined. They can always say to himself later on, while nursing a beer, aˆ?She performednaˆ™t know the real me. If she got, she’d said yes.aˆ? And heaˆ™s probably correct! Iaˆ™ve exchanged glances with countless girlfriends at taverns who were trapped in boring discussions. My personal guess is this business arenaˆ™t dull, theyaˆ™re simply afraid of appearing weird or curious or whatever to come off looking like anything at all.

A better solution: danger. In taming any monster there was an element of threat

You will find lots of creatures we are able to all convert into whenever we anxiety. Iaˆ™ve changed into Giggles-at-Nothing beast together with Never-Smiles-Because-Smiling-Isnaˆ™t-Cool monster. Both forms gone home alone. If you approach someone youraˆ™re thinking about, you may have two selection: address it just like the scary terror flick they feels like, or keep in mind itaˆ™s real life. The reality is you might get turned-down in spite of how great, great, cool, funny, or awesome you might be. But that nonetheless sounds sprouting fur and fangs and behaving like someone your charmdate donaˆ™t know. The trick is actually playing the intuition. Hey, creatures include creatures and creatures were instinctive. In the event that you feel claws and roaring increasing up within, take a breath and regroup. Something inside your is trying to inform you some thing. Listen, calm down, acquire the monster, and walk-up to this lady as a guy, maybe not a monster.

এই পোস্টটি সোশাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আমাদের ডোনেট করুন

শিশুদের উন্নয়নে অংশিদার হোন
আমাদের সহায়তা করুন

বিকাশ নাম্বার- ০১৭৩৬২১৩৮২৮

মাসব্যাপি অনলাইন কুইজ প্রতিযোগীতা-২০২০ইং

মাসব্যাপি অনলাইন কুইজ প্রতিযোগীতা-২০২০ইং পেতে এখানে ক্লিক করুন ।

অনলাইনে ভোটার রেজিষ্টেশন

অনলাইনে ভোটার রেজিষ্টেশন ফরম পেতে এখানে ক্লিক করুন ।

অনলাইনে সদস্য ফরম

অনলাইনে সদস্য ফরম পেতে এখানে ক্লিক করুন ।

সকল ফরম সমূহ

শিশু সংসদ সদস্য পদে আবেদন ফরম পেতে এখানে ক্লিক করুন ।

নির্বাচনের মনোনয়ন ফরম পেতে এখানে ক্লিক করুন

উপ শিশু সাংসদ সদস্য পদে আবেদন পত্র পেতে এখানে ক্লিক করুন

উপদেষ্টা পদে সম্মতি পত্র পেতে এখানে ক্লিক করুন

ভোটার রেজিঃ ফরম পেতে এখানে ক্লিক করুন

চেয়ারম্যানের পরিচয়

মিস. ফাতিমা মুন্নি। প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান বাংলাদেশ জাতীয় শিশু সংসদ বিএনসিপি। তিনি দেশের অন্যতম একজন শিশু সংগঠক, শিশু গবেষক এবং সম্পাদক। তিনি জনপ্রিয় জাতীয় শিশু কিশোর ম্যাগাজিন কিশোর গোয়েন্দা’র সম্পাদক ও প্রকাশক। এছাড়াও তিনি বিএনসিপির সকল সহযোগী প্রতিষ্ঠানসমূহের প্রতিষ্ঠাতা।১৯৯৬ সালে ৩০ শে মে ঐতিহাসিক কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলার এক মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বর্তমানে স্বপরিবারে ঢাকার কমলাপুরে বসবাস করেন। তিনি ঐহিয্যবাহী কুমিল্লা ভিক্টরিয়া সরকারী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিষয়ে অর্নাসে প্রথম শ্রেণীতে উৎতিন্ন হয়ে একই কলেজ থেকে মাষ্টার’স শেষ করে বর্তমানে উচ্চতর ডিগ্রী পিএইসডি অর্জনের জন্য দেশের বাহিরে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।
তিনি ছোট বেলা থেকেই শিশুদের ব্যাপারে খুবই কৌতুহলি এবং আবেগি ছিলেন। তিনি সব সময় শিশুদের উন্নয়ন এবং ভবিষৎতে যেন আজকের শিশুরাই আগামীর পৃথিবীকে সুন্দর ও যুগ উপযুগী সিদ্ধান্ত নিয়ে সঠিক ভাবে পরিচালনা করতে পারে এই নিয়ে চিন্তা করতেন। “আজকের শিশুরাই আগামীর ভবিষৎত” মূলত এই ব্যাক্যটি থেকেই বিএনসিপির জন্ম। মিস. ফাতিমা মুন্নির মতে যদি আজকের শিশুরাই আগামীর ভবিষৎত হয়ে থাকে তবে অবশ্যই তাদের আগামীর জন্য উপযুক্ত করে গড়ে তুলতে হবে এবং অবশ্যই সেই গড়ে উঠার মাধ্যমটি হতে হবে সম্পূর্ন ভিন্ন, কৌতুহলি, যুগ উপযুগী এবং সর্বপরি সর্বজনিন গ্রহণযোগ্য। কি হতে পারে সেই মাধ্যম, এমন চিন্তা, গবেষণা এবং অক্লান্ত প্ররিশ্রমের ফল ই হল আজকের বিএনসিপি। বিএনসিপি শুধুমাত্র একটি সংগঠন নয়, এটি রাষ্ট্র ও সমাজের শুভ, কল্যাণ ও শ্রেয়বোধ উন্নয়ন মূলক প্রতিষ্ঠান। নতুন প্রজন্ম নতুন পৃথিবী চায় তারা এ দেশের ভবিষ্যত নির্মাতা। তাদের রুচি, মেধা ও মূল্যবোধের ওপরই নির্ভর করছে দেশের ভবিষ্যত কতটা উজ্জলতর হবে। নিজেকে উন্নত মানুষ হিসাবে গড়ে তুলতে পারাটাই প্রত্যেকে এক বড় কর্তব্য। তাহলেই তারা তাদের মেধা, শ্রম, শিক্ষা ও রুচি দিয়ে দেশ, মানুষ ও বিশ্বমানবতার কল্যাণে নিজেদের নিয়োজিত করতে পারবে এবং গণতন্ত্র চর্চ্যা, সাহিত্য, শিল্প, সংস্কৃতি, খেলাধুলার মধ্য দিয়েই শিশুরা হয়ে উঠবে আর্দশ নাগরিক হিসাবে। বিএনসিপি নতুন প্রজন্মের মধ্যে এই মানবিক মূল্যবোধ সঞ্চার করতে চায়। এটি মানবিক মূল্যবোধে উজ্জ্বিবিত মানুষের সম্মিলিত হওয়ার, নিজেকে গড়ে তোলার এবং মানবতার কল্যাণে কাজ করার একটি মঞ্চ। “আমরা জয় করব নিজেকে, জয় করব এই দেশকে এই দেশের মানুষকে এই আমাদের অঙ্গিকার” এই শ্লোগান নিয়ে প্রতিষ্ঠিত বিএনসিপি। সারা দেশেই রয়েছে এর বিস্তৃতি। এটি একটি শিশু অধিকার রক্ষা এবং শিশু-কিশোদের নেতৃত্ব বিকাশ ও মানসিক উন্নয়নের লক্ষে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠার অন্যতম শ্রেষ্ট মাধ্যম।

“শিশুদের উন্নয়নে অংশিদার হোন
আমাদের সহায়তা করুন
বাংলাদেশ জাতীয় শিশু সংসদ বিএনসিপি
আসুন সবাই শিশুদের উন্নয়ন করি কপি”

ধন্যবাদান্তে
ফাতিমা মুন্নি
প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান
বাংলাদেশ জাতীয় শিশু সংসদ বিএনসিপি